New Guidelines For 500 Note

New Guidelines For 500 Note

New Guidelines For 500 Note

New Guidelines For 500 Note :  রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া: সম্প্রতি আরবিআই ৫০০ টাকার বিষয়ে একটি নতুন গাইডলাইন জারি করেছে। যার পর থেকেই মানুষের উত্তেজনা বেড়ে যায়। ২০০০ টাকার নোটের পর এবার ৫০০ টাকার নোট  প্রচলন বন্ধ হতে চলেছে। তো চলুন নিচের খবরে আরবিআইয়ের এই নতুন গাইডলাইন সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক

রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া (আরবিআই) কর্তৃক ২০ টাকার নোট প্রত্যাহারের পরে, এখন ৫০০ টাকার নোট নিয়ে একটি নতুন চ্যালেঞ্জ দেখা দিয়েছে। আরবিআইয়ের সর্বশেষ বার্ষিক প্রতিবেদনে ৫০০ টাকার নোট সম্পর্কিত একটি বড় সমস্যা প্রকাশ পেয়েছে।

২০ টাকার গোলাপি নোট বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর এখন ৫০০ টাকার নোট রিজার্ভ ব্যাঙ্কের জন্য গুরুতর সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই রিপোর্ট অনুযায়ী, ৫০০ টাকার জাল নোটের অনুপ্রবেশ ক্রমাগত বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০২২-২৩ অর্থবছরে ৫০০ টাকার প্রায় ৯১ হাজার ১১০টি জাল নোট ধরা পড়েছে, যা ২০২১-২২ অর্থবছরের তুলনায় ১৪.৬ শতাংশ বেশি।

সেই তুলনায় ২০২০-২১ অর্থবছরে ৫০০ টাকার ৩৯,৪৫৩টি জাল নোট ধরা পড়েছে, ২০২১-২২ অর্থবছরে এই সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭৬ হাজার ৬৬৯টি। সুতরাং, জাল নোটের এই ক্রমবর্ধমান সংখ্যা আরবিআইয়ের জন্য অত্যন্ত উদ্বেগের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

New Guidelines For 500 Note : উদ্বেগ প্রকাশ করল আরবিআই

রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া (আরবিআই) সম্প্রতি তাদের বার্ষিক প্রতিবেদনে দেশে ৫০০ এবং ২০০০ টাকার জাল নোটের ক্রমবর্ধমান সংখ্যা সম্পর্কে উদ্বেগজনক তথ্য প্রকাশ করেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০ টাকার নোট বাতিলের পর এখন ৫০০ টাকার নোট বিপুল পরিমাণ জালিয়াতির লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়েছে।

New Guidelines For 500 Note : বাড়ছে জাল নোটের সংখ্যা

২০২২-২৩ অর্থবছরে ৫০০ টাকার জাল নোটের সংখ্যা ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। এ বছর প্রায় ৯১ হাজার ১১০টি জাল নোট শনাক্ত হয়েছে, যা গত বছরের চেয়ে ১৪ দশমিক ৬ শতাংশ বেশি। বিপরীতে, ২,০ টাকার জাল নোটের সংখ্যা ২৮% হ্রাস পেয়েছে, যা দাঁড়িয়েছে ৯,৮০৬ টি নোটে।

রিজার্ভ ব্যাঙ্কের রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে যে ১০০, ৫০, ২০ এবং ১০ টাকার জাল নোটও উদ্ধার করা হয়েছে। বিশেষ করে ২০ টাকার জাল নোটের সংখ্যা বেড়েছে ৮.৪ শতাংশ।

New Guidelines For 500 Note : নোট ছাপানোর জন্য আরবিআই কত টাকা খরচ করেছে

আরবিআই ২০২২-২৩ সালে নোট ছাপাতে মোট ৪,৬৮২.৮০ কোটি টাকা ব্যয় করেছে, যা গত বছরের তুলনায় কম। ৩১ শে মার্চ, ২০২৩ পর্যন্ত দেশের মোট মুদ্রা প্রচলনে ৫০০ টাকার নোটের অংশ ছিল ৩৭.৯%, যেখানে ১০ টাকার নোটের অংশ ছিল ১৯.২%। এটি দেখায় যে জাল নোটগুলি সনাক্ত করা এবং সেগুলি সিস্টেম থেকে সরানো আরবিআইয়ের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ চ্যালেঞ্জ।

আরবিআই এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এই পরিস্থিতি মোকাবেলায় নিরন্তর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে, যাতে জাল নোটের অনুপ্রবেশ বন্ধ করা যায় এবং নাগরিকদের আস্থা বজায় রাখা যায়। পাশাপাশি সাধারণ মানুষকেও সতর্ক থাকতে এবং জাল নোট সনাক্ত করতে সচেতন করা হচ্ছে।

Reserve Bank of India (rbi.org.in)

সংবাদ – Bangla News Express

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You missed